June 21, 2024, 8:35 am

image 286430 1635241113

ফুলবাড়ী প্রধান সড়কে সিএনজি-অটোবাইক পার্কিং, দুর্ভোগ চরমে

Spread the love

বিএসএন নিউজ ডেস্ক: কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে সিএনজি-অটোবাইকে যাত্রী ওঠা-নামার জন্য নির্দিষ্ট কোনো স্ট্যান্ড না থাকায় প্রধান সড়কেই এসব যানবাহন পার্কিং করা হচ্ছে। চালকরা যেখানে-সেখানে যাত্রী ওঠা-নামা করাচ্ছেন। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ মানুষ।

সরেজমিনে দেখা গেছে, উপজেলা শহরের তিনকোণা মোড় (জিরোপয়েন্ট) থেকে কলেজ মোড় হয়ে সোনালী ব্যাংক, অন্যদিকে উপজেলা গেট ও খাদ্য গুদাম পর্যন্ত যাতায়াতের প্রধান সড়কের দুই পাশে রাখা হয়েছে অটোরিকশা,সিএনজি ,অটোবাইকসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন। প্রতিদিনেই ব্যস্ততম সড়কে সারিবদ্ধভাবে অটো-সিএনজি রাখার কারণে যানজট এখন নিত্য দিনের সঙ্গী।

এরশাদুল হক, জীবন মিয়া ও মোস্তাফিজুর রহমানসহ একাধিক ভুক্তভোগী জানান, জরুরি প্রয়োজনে উপজেলার ৬ ইউনিয়ন থেকে হাজার হাজার মানুষ প্রতিদিন উপজেলা সদরে আসে। সদরে নির্দিষ্ট সিএনজি ও অটোবাইকের স্ট্যান্ড না থাকায় এভাবেই মূল সড়কের দুই পাশে সারিবদ্ধভাবে অটো-সিএনজিসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন রাখা হচ্ছে। এতে ইচ্ছেমতো যাত্রী ওঠানামাসহ সড়কেই ঘণ্টার পর ঘণ্টা নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ওঠানো কিংবা নামানোর কারণে দীর্ঘ যানজট লেগেই থাকে।

ঐশী টেলিকমের মালিক ওসমান গণি ও কাপড় ব্যবসায়ী একরামুল হক জানান, সড়কের দুই পাশে অটোবাইক ও সিএনজি রাখার কারণে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজট লেগেই থাকে। এতে ক্রেতারা আসতে না পারায় বিক্রি কমে যাচ্ছে।

বণিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তাফা সরকার জানান, মূল সড়কে দীর্ঘ যানজটের কারণে উপজেলা সদরের দুই শতাধিক ব্যবসায়ীসহ হাজার হাজার মানুষ চরম ভোগান্তিতে। প্রশাসনকে জানানোর পরও সড়কের যানজট নিরসন হয়নি।

ফুলবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাজীব কুমার রায় বলেন, ‘ফুলবাড়ী সদরের যানজট নিরসন করতে আমরা প্রায় অভিযান চালাই। সড়ককে যানজট মুক্ত করতে ইতোমধ্যেই কর্তৃপক্ষের কাছে ট্রাফিক পুলিশের জন্য আবেদন করা হয়েছে।’

এ প্রসঙ্গে উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) সুমন দাস বলেন, ‘উপজেলা প্রশাসন সদরের যানজট নিরসনে জেলা পুলিশ সুপারের কাছে ট্রাফিক পুলিশের জন্য আবেদন করা হবে।


Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category