June 22, 2024, 12:54 pm

kamal

ঢাকায় যাদের জমি-ফ্ল্যাট আছে, সবাই কালো টাকার মালিক : অর্থমন্ত্রী

Spread the love

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেছেন, ‘ঢাকায় যাদের জায়গা-জমি বা ফ্ল্যাট আছে তারা সবাই কালো টাকার মালিক। এ জন্য সরকার দায়ী, আমাদের সিস্টেম দায়ী।’

আজ বুধবার দুপুরে সরকারি অর্থনৈতিক ও ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির ভার্চুয়ালি বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে  এ কথা বলেন অর্থমন্ত্রী কামাল। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন তিনি।

জমির নিবন্ধন প্রক্রিয়ার ত্রুটি সম্পর্কে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘গুলশান এলাকায় কেনা কোনো জমির যে দাম দেখিয়ে রেজিস্ট্রি (নিবন্ধন) করা হয় জমির প্রকৃত দাম তার চেয়েও বেশি। কিন্তু বেশি দামে তো রেজিস্ট্রি করতে পারবেন না। প্রত্যেকটা মৌজার জন্য দাম ঠিক করে দেওয়া আছে, এর বেশি দামে রেজিস্ট্রি করা যাবে না। সুতরাং যেটি পারা যাবে না, কালো টাকা তো সেখানেই হয়ে আছে। কে কালো টাকার বাইরে আছে?’

পাচার করা টাকা ফেরত আনার সিদ্ধান্তের বিষয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘পাচার করা টাকা যখন দেশে ফেরত আসবে, আমরা মনে করি তখন সেটার একটি অংশ শেয়ারবাজারে বিনিয়োগ হবে। বিভিন্ন শিল্প-কারখানা, ব্যবসা-বাণিজ্যে বিনিয়োগ হবে। এ প্রত্যাশায় আমরা সেদিকে নজর দিচ্ছি।’

কোনো চাপে এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কিনা, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে মুস্তফা কামাল বলেন, ‘আমি কোনোভাবে চাপে নেই। আমি যা বলেছি তা আমি করব। আমি অর্ধেক রাস্তা থেকে ফিরে আসি না। আমি যখন রেমিট্যান্সের ওপর প্রণোদনা দিয়েছি তখন অনেক সমালোচনা ছিল। বলা হয়েছিল টাকা আসবে না, কিছু হবে না, টাকা পাচার হবে। কিন্তু এসেছে, শুধু আসেইনি ঐতিহাসিক রেকর্ডও হয়েছে।’

নিজের সিদ্ধান্তের পক্ষে যুক্তি দিয়ে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘যখন বিদেশে পাচার হওয়া কালো টাকা দেশে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করি তখন বলা হচ্ছে, সরকার নাকি কালো টাকাকে সাদা করার প্রশ্রয় দিচ্ছে। আমি বারবার বলি অপ্রদর্শিত টাকা। এখানে লাজ-লজ্জার কিছু নেই। সরকার এজন্য দায়ী। আমিও এক সময় দায়িত্বে ছিলাম। ঢাকা শহরে জমির দাম বাড়ানো যায় কি না সেটা নিয়ে চিন্তা করলেও শেষ পর্যন্ত দাম বাড়াতে পারিনি। যে দাম ছিল সে দামই আছে।’

তিনি বলেন, ‘বাস্তবতা হচ্ছে, যে ফ্ল্যাট দুই কোটি টাকায় রেজিস্ট্রি হচ্ছে সেই ফ্ল্যাটের প্রকৃত দাম ১০ কোটি টাকা। ফলে সরকার বাড়তি রেজিস্ট্রেশন ফি পাচ্ছে না। এখানেই কালো টাকার উত্থান হচ্ছে। এ বিষয়গুলো সবাইকে বুঝতে হবে। ঢাকা শহরে যার জায়গা আছে কিংবা যে ব্যক্তি জায়গা কিনেছেন তিনিই শুধু বলতে পারবেন, কত টাকায় রেজিস্ট্রি হয়েছে এবং জায়গার প্রকৃত বাজার দর কত।’


Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category