June 22, 2024, 1:46 pm

গাইতে গাইতে ঘামছিলেন কে কে, বলেছিলেন আলো নিভিয়ে দাও তারপর মৃত্যু

গাইতে গাইতে ঘামছিলেন কে কে, বলেছিলেন আলো নিভিয়ে দাও তারপর মৃত্যু

Spread the love

চারদিকে নানা রকমের আলোর ঝলকানি। ভিড়ে ঠাসা কলকাতার নজরুল মঞ্চ। এই মঞ্চেই গাইছিলেন বলিউডের জনপ্রিয় গায়ক কৃষ্ণকুমার কুননাথ (কেকে)। তবে গানের মাঝে বারবার রুমালে মুখ-কপালের ঘাম মোছেন শিল্পী। মাথাতেও ওই রুমাল বোলাচ্ছিলেন। একাধিকবার ছোট বোতল থেকে গলায় পানি ঢেলেছেন। গতকাল মঙ্গলবার নজরুল মঞ্চের কেকে-র লাইভ অনুষ্ঠানের একাধিক ভিডিওতে এ দৃশ্য দেখা গেছে।

ভিডিওতে দেখা গেছে, টেবিল থেকে তুলে নেওয়া রুমালে মুখ মুছে, মাথার চুলে আঙুল চালিয়ে গান শুরু করতে যাচ্ছেন কেকে। পাশ থেকে মঞ্চে থাকা একজন হিন্দিতে বলে উঠলেন, ‌ভীষণ গরম। শিল্পী তার দিকে তাকিয়ে হেসে সম্মতি দিলেন যেন। তারপর একজনকে হাতের ইশারায় মঞ্চের উপরের আলোগুলো দেখিয়ে বললেন, ‘নিভিয়ে দাও।’ তার পর ফের গান শুরু।

জিনিউজ, আনন্দবাজারসহ ভারতের একাধিক গণমাধ্যম জানিয়েছেন, অনুষ্ঠানের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কেকে ছিলেন অত্যন্ত চনমনে। দাপিয়ে বেড়িয়েছেন মঞ্চের এ পাশ থেকে ও পাশ। কিন্তু বারবার চলে যাচ্ছিলেন মঞ্চের পেছনের অংশে নিচু টেবিলে রাখা রুমাল ও জলের বোতলের দিকে। মুখ-মাথা মুছে গলায় অল্প পানি ঢেলে ফের পরের গান।

লাইভ অনুষ্ঠানের পর অসুস্থ হয়ে পড়েন কেকে। সেখান থেকে হোটেলে এবং পরে স্থানীয় এক হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানকার চিকিৎসকেরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ৫৪ বছর বয়সী এই গায়ক হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

তার আচমকা মৃত্যুর খবরে অনেকেই প্রেক্ষাগৃহের ভিড় নিয়ে সরব হয়েছেন। রোহিত সাউ নামে গুরু নানক ইনস্টিটিউটের এক ছাত্র বলেন, ‘প্রচুর ভিড় হয়েছিল। বাইরেও অনেকে দাঁড়িয়ে ছিলেন। একটা সময় দরজা খুলে দেওয়া হয়। এত গরম লাগছিল, মনে হচ্ছিল, এসি কাজ করছে না।’

কেকে-র অনুষ্ঠানের আগে ওই মঞ্চেই গান গেয়েছেন শুভলক্ষ্মী দে। তিনি জানিয়েছেন, কেকে ঢোকার পর তিনি গ্রিন রুমে গিয়ে শিল্পীর সঙ্গে দেখা করেন। কেকে তার সঙ্গে ভালো করে কথাও বলেন। শারীরিকভাবে তাকে কোনভাবেই সেই সময় অসুস্থ বলে মনে হয়নি শুভলক্ষ্মীর।

তিনি বলেন, ‘অনুষ্ঠানে এসে গাড়িতেই কিছুক্ষণ বসে ছিলেন উনি। এত ভিড় যে ঢুকতে পারছিলেন না। তার পর তাকে এনে গ্রিনরুমে বসানো হয়। আমি গিয়ে দেখা করি। কথা হয়। অনুষ্ঠানের সময় ভীষণই এনার্জেটিক লাগছিল ওকে। ভাবতেই পারিনি এমনটা হবে!’

নেটমাধ্যমে কেকে-র অনুষ্ঠানের ভিড় নিয়ে রাতেই অবশ্য অনেকেই পোস্ট করেছেন। কারও কারও অভিযোগ, আসনের তুলনায় দর্শকের সংখ্যা বেশি ছিল নজরুল মঞ্চে। কারও কারও অভিযোগ, হলের শীতাতপ যন্ত্রও ঠিকমতো কাজ করছিল না।

তবে এর পাল্টা পোস্টও করেছেন কেউ কেউ। তাদের মতে, প্রচুর দর্শক এবং উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন আলোর কারণে হলের ভেতরে গরম লাগাটাই স্বাভাবিক।  আবার বারও কারও দাবি, হলের দরজা খোলা ছিল বলে শীতাতপ যন্ত্রের কার্যকারিতা উপলব্ধি করা যাচ্ছিল না।

এদিকে, আজ বুধবার কেকের দেহের ময়নাতদন্ত হবে। তারপর গায়কের মরদেহ তার স্ত্রী ও ছেলের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

‘খুব মজা’ করবেন বলে কলকাতায় এসেছিলেন কেকে। শহরে আসার আগে নেটমাধ্যমে একটি ভিডিওবার্তা পোস্ট করে এমনটাই জানিয়েছিলেন এই গায়ক। কিন্তু মঙ্গলবার রাতে লাইভ শো শেষে সব ‘মজা’র আচমকা সমাপ্তি ঘটলো। কী ভাবে এমনটা হলো, ভেবে পাচ্ছেন না কেউ।


Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     More News Of This Category